সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২২
হোমজেলাআখাউড়া কলেজের চাবি ছিনিয়ে নিলেন আ.লীগ নেতা:উদ্ধার করলেন ইউএনও

আখাউড়া কলেজের চাবি ছিনিয়ে নিলেন আ.লীগ নেতা:উদ্ধার করলেন ইউএনও

 আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া সদরের শহীদ স্মৃতি সরকারি কলেজে অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত করে সার্টিফিকেট কক্ষের ছিনিয়ে নেওয়া চাবিটি উদ্ধার করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুমানা আক্তার।
আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবির মোল্লা জোর করে অধ্যক্ষের কাছ থেকে চাবিটি ছিনিয়ে নেন। হুমায়ূন কবির মোল্লা ওই কলেজের অধ্যাপক ও আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য।
কলেজ সূত্রে জানা গেছে, ছাত্রছাত্রীদের সার্টিফিকেট, মার্কশিট, বেতন আদায়ের রসিদ বই, নগদ টাকাসহ গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র একটি কক্ষে রাখা হয়। অধ্যাপক হুমায়ুন কবির মোল্লা কলেজের অধ্যক্ষ আবু জামালকে ওই কক্ষের চাবি দিতে বলেন। কিন্তু অধ্যক্ষ অপারগতা প্রকাশ করলে তিনি জোর করে চাবি ছিনিয়ে নেন। অধ্যক্ষকে গালমন্দ করে লাঞ্ছিত করেন। এ সময় কলেজের অন্যান্য অধ্যাপক এগিয়ে এসে অধ্যক্ষকে রক্ষা করেন।
পরে অধ্যক্ষ আবু জামাল বিষয়টি ইউএনও ও কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি রুমানা আক্তারকে জানান। ইউএনও রুমানা আক্তার অধ্যাপক হুমায়ুন কবির মোল্লাকে ডেকে নিয়ে চাবি ফেরত দিতে বলেন। পরে তিনি ইউএনও’র কাছে চাবি ফেরত দেন।
এছাড়াও হুমায়ুন কবির মোল্লার বিরুদ্ধে সহকর্মীদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করারও অভিযোগ উঠেছে। ভাইস প্রিন্সিপাল না হয়েও তিনি জোর করে কলেজের ভাইস প্রিন্সিপালের কক্ষ দখল করে ব্যক্তিগত অফিস হিসেবে ব্যবহার করছেন। তিনি স্থানীয় প্রভাবশালী হওয়ায় তার ভয়ে অন্যান্য শিক্ষকরা তটস্থ হয়ে থাকেন। এক প্রভাষককে হেনস্তা করায় হুমায়ুন কবির মোল্লার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই প্রভাষক।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রভাষক জানান, হুমায়ুন কবির মোল্লা অন্যান্য অধ্যাপকদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। রাজনীতি ও স্থানীয় প্রভাব খাঁটিয়ে তিনি সহকর্মীদেরকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে রেখেছেন।
এ ব্যাপারে কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক ও নির্বাচিত শিক্ষক প্রতিনিধি ফয়জুন্নেসা লিজা বলেন, কলেজে জাতীয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে আমি মঞ্চে বসায় তিনি (হুমায়ুন কবির) আমার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন এবং আমাকে জোরপূর্বক মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেন। আমি প্রতিবাদ করায় তিনি এলাকা থেকে লোকজন এনে আমাকে নাজেহাল করেন। এ বিষয়ে আমি থানায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।
কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবু জামাল বলেন, তিনি জোর করে আমার কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট রাখার কক্ষের চাবি ছিনিয়ে নেন এবং আমার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন।
তবে অভিযুক্ত হুমায়ুন কবির মোল্লা জোর করে চাবি নেওয়ার কথা অস্বীকার করে বিস্তারিত পরে জানাবেন বলে জানান।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি ও ইউএনও রুমানা আক্তার সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি জানার পর আমি তাকে (হুমায়ূন কবির মোল্লা) চাবি ফেরত দিতে বলি। পরে তিনি চাবি ফেরত দেন। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments