বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১৮, ২০২৪
হোমজেলাব্রাহ্মণবাড়িয়াপবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জমজমাট গো-খাদ্য ব্যবসায়

পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জমজমাট গো-খাদ্য ব্যবসায়

আগামী ২১ জুলাই পবিত্র ঈদুল আজহা। আর মাত্র দু’দিন বাকী। ঈদকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বেড়েছে গো-খাদ্যের ব্যাপক চাহিদা। বিশেষ করে যারা কোরবানির পশু নিয়েছেন তাদের কাছে এর চাহিদা খুব বেশী। এ অবস্থায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার বিভিন্নস্থানে গো-খাদ্যের দোকান খুলে বসেছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা।

পৌর এলাকার সাবেরা সোবহান উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে, রেলওয়ে স্টেশনের সামনে, কাজীপাড়া ঈদগাহ মাঠের সামনে, নিয়াজ মুহাম্মদ স্টেডিয়ামের সামনে, জেল রোডের ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে, ঘোড়াপট্টি ব্রীজের গোড়ায়, তোফায়েল আজম মনুমেন্টের সামনে, খালপাড়সহ বিভিন্ন স্থানে বসেছে এসব অস্থায়ী দোকান।

এসব দোকানে গরুর জন্য ঘাস, খড় ও ভুসি সহ নানা ধরনের উপকরণ বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও বিক্রি হচ্ছে দা, বটি, ছুরি ও মাংস কাটার গড়।

গো-খাদ্য বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ঈদকে সামনে রেখে বাড়তি রোজগারের আশায় মূলত তারা এই মৌসুমী ব্যবসা শুরু করেছেন। গত শুক্রবার থেকে তারা খর, তাজা ঘাস ও গড় নিয়ে জনাকীর্ণ এলাকায় বসেছেন। একেক বান্ডেল ঘাস ও খড় ৪০-৬০ টাকা দরে বিক্রি করছেন। পশু কিনে যারা নিজ বাড়িতে রাখছেন তারাই মূলত এসবের ক্রেতা।

সোমবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে গিয়ে গো-খাদ্য বিক্রেতা আজম খান, রেনু মিয়া ও অলফত খানের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে তারা প্রতি বছরই তার অস্থায়ী এই দোকান নিয়ে বসেন। ব্যবসা মোটামুটি ভালো ব্যবসা হচ্ছে। আগামী দুইদিনও ব্যবসা ভালো হবে

ব্যবসায়ীরা জানান, তারা ঘাস ১ মোটা ৪০/৫০ টাকা, এক মোটা খড় ৫০/৬০ ও ভূসি প্রতি কেজি ৪০/৫০ টাকা করে বিক্রি করছেন।

টি.এ. রোডের বিক্রেতা জসিম মিয়া জানান, কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে তিনি খড়, ঘাস ও ভূসি নিয়ে এসেছেন। বিক্রিও ভালো হচ্ছে। আগামী দুইদিন ক্রেতার সংখ্যা বাড়বে ও ব্যবসা ভালো হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ঘোড়াপট্টি ব্রীজের সাথে কথা হয় গো-খাদ্য বিক্রেতা কুদ্দুস মিয়ার সাথে। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে মানুষ কম আসে। মঙ্গলবার থেকে বিক্রি আরও বাড়বে বলে জানান তিনি।

পৌর এলাকার পৈরতলা গ্রামের বাসিন্দা সাজ্জাদ মাহমুদ বলেন, গরুর জন্য খড় ও ঘাস কিনতে এসেছেন ঘোড়াপট্টি ব্রিজের সামনে।

পৌর এলাকার কলেজপাড়ার বাসিন্দা রমুজ আলী ও মধ্যপাড়ার কাশেম মিয়া বলেন, কোরবানির জন্য গরু কিনেছি। এখন গরুর জন্য খড় ও ঘাস কিনতে এখানে এসেছি।

পোষ্ট অফিস ও তোফায়েল আজম মনুমেন্টের সামনে বসে দা, বটি, ছুরি ও মাংস কাটার গড় বিক্রি করছেন মধ্যপাড়ার সাগর মিয়া। তিনি বলেন, একেকটি গড় আকার ভেদে ১৫০ থেকে ৩০০ টাকা করে বিক্রি করেছেন। তেতুল গাছ কেটে ৯০টি গড় তৈড়ি করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, গড়ের পাশাপাশি তিনি দা, বটি বিক্রি করছেন। একেকটি দা, বটি আকার ভেদে ২০০ থেকে ৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। মঙ্গলবার বিক্রি আরও বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments