শনিবার, এপ্রিল ২০, ২০২৪
হোমজেলাপূর্বমেড্ডায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান

পূর্বমেড্ডায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান

 ঠিকাদার আলমগীরের বাঁধা,বাখরাবাদের কর্মকর্তাকে নাজেহালের চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেওয়ার জন্য রাতের আঁধারে বসিয়েছেন প্রায় ২০০ ফুট পাইপ। খবর পেয়ে সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণ টিম ঘটনাস্থলে গেলে বাদানুবাদে লিপ্ত হয়ে ঠিকাদার আলমগীর চরম রাগ দেখিয়েছেন কর্মকর্তাদের সাথে, বাঁধা দিয়েছেন সরকারি কাজে। পরে ঘটনাস্থলে ছুটে গেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাখরাবাদের উর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা। অবস্থা বেগতিক দেখে ঘটনাস্থল থেকে সটকে গেছেন সেই ঠিকাদার। ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের পূর্ব মেড্ডায় ঘটেছে গতকাল বুধবার।

জানা গেছে, মেড্ডা এলাকার ঠিকাদার আলমগীরের বিরুদ্ধে অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেওয়ার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। করোনাকালীন সময়ে কঠোর লকডাউনকে পুঁজি করে তিনি যেন মেতে উঠেছেন অবৈধ গ্যাস সংযোগের মহোৎসবে। প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন ৯/১০টি বাড়িতে একযোগে সংযোগ দেওয়ার। সূত্র জানায়, সেই ধারাবাহিকতায় কিছুদিন পূর্বে পূর্ব মেড্ডায় রাতের আঁধারে ঠিকাদার আলমগীর ট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান তানিম, সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি হেবজুল বারীর বাড়িসহ ৯-১০টি বাড়িতে গ্যাস সংযোগ দেয়ার উদ্দেশ্যে অবৈধভাবে ২০০ ফুট পাইপ বসানোর কাজ শেষ করেন। এরমধ্যেই খবর পেয়ে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড এর ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়ের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণ টিম পূর্বমেড্ডা কবরস্থানের পশ্চিম দিকে আলী রেজার বাড়ির এলাকায় সংবাদের সত্যতা পেয়ে অবৈধভাবে বসানো ২শ’ ফুট পাইপ অপসারনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। এ সময় ঠিকাদার আলমগীর চরম ক্ষোভ ও বাগাম্বরিতার মাধ্যমে বাঁধা দেন। নাজেহালের চেষ্টা করেন এক কর্মকর্তাকে। বিষয়টি সাথে সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়কে অবহিত করা হলে ঘটনাস্থলে আসেন বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া আঞ্চলিক কার্যালয়ের ম্যানেজার (ই.এস শাখা) প্রকৌশলী শফিকুল হক। এ সময় অবস্থা বেগতিক দেখে সটকে পড়েন ঠিকাদার আলমগীর। বিচ্ছিন্নকরণ টিম অবৈধ ২শ’ ফুট পাইপ অপসারণ করেন। অভিযানে সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি হেবজুল বারী এর বাড়িসহ আরো একটি বাড়ির গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়ের সহকারী কর্মকর্তা (কারীগরি) কামরুল হাসান জানান, মেড্ডা এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযানের সময় গ্যাস ঠিকাদার আলমগীর অবৈধ লাইন বিচ্ছিন্ন করতে বাঁধা প্রদান করে ও আমাদের উপর চড়াও হয়। বিষয়টি আমি বাখরাবাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

এ বিষয়ে জানতে ঠিকাদার আলমগীরের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান- আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম। তবে অপসারন করা পাইপগুলো তিতাসের আমলে বসানো বলে তিনি দাবী করেন। বাখরাবাদ কর্মকর্তাকে নাজেহালের বিষয়ে প্রশ্ন করলে বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন- এ ধরণের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া আঞ্চলিক কার্যালয়ের ম্যানেজার (ই.এস শাখা) প্রকৌশলী শফিকুল হক জানান- পূর্বমেড্ডা এলাকায় অবৈধভাবে কিছু বাড়িতে গ্যাস লাইন দেয়ার উদ্দেশ্যে ২০০ ফুট পাইপ বসানো হয়েছে এর একটি সংবাদ পাওয়ার পর তাৎক্ষনিক আমি আমাদের অফিসের একটি টিম পূর্বমেড্ডায় পাঠায়। সেখানে হট্টগোল সৃষ্টি হলে আমি স্পটে গিয়ে অবৈধ লাইন দেয়ার উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত ২০০ ফুট পাইপসহ ২টি অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে নিয়ে আসি। অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন আমাদের ধারাবাহিক অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments