মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৩
হোমজেলাব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনাকালে চেয়ারে বসিয়ে পুরোহিতদের দেয়া হল প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সামগ্রী উপহার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনাকালে চেয়ারে বসিয়ে পুরোহিতদের দেয়া হল প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সামগ্রী উপহার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : করোনা মহামারী চলাকালে কর্মহীন একশত জন ব্রাহ্মণ (পুরোহিত) ও তাদের পরিবারের মাঝে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জেলা শহরের কেন্দ্রীয় মন্দির শ্রীশ্রী আনন্দময়ীকালী মন্দিরে চেয়ারে বসিয়ে পুরোহিতদের হাতে এসব খাদ্যসামগ্রী তুলেদেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা (সার্বিক) রহুল আমীন। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে দশ কেজি চাল, এক লিটার ভোজ্যতেল, এক কেজি ডাল, এক কেজি আটা, এক কেজি আলু, এক কেজি চিনি, আধা কেজি সাগু, দুইশ গ্রাম ঘি, দুইশ গ্রাম গুড়ো দুধ,দুইশ গ্রাম চাপাতা ও দুটি সাবান ছিল।

জেলা ব্রাহ্মণ সংগঠনের সভাপতি হরিশঙ্কর চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রহুল আমীন বলেন, সারা বিশ্ব এখন কঠিন সময় পার করছে। এতে করে অনেকের জীবন জীবিকা সংকটাপন্ন হয়ে পড়েছে। মন্দিরেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হচ্ছে। যার কারণে ব্রাহ্মণ পুরোহিতদেরও অসুবিধা হচ্ছে। এই অসুবিধার কথা জেনে আমাদের মানবিক প্রধানমন্ত্রী সব দিকেই খোঁজখবর রাখছেন। তিনি ইমাম, মুয়াজ্জিন প্রত্যেকের জন্যে পর্যাপ্ত খাদ্য সহায়তা নিশ্চিত করেছেন। এরই অংশ হিসেবে আজকে ব্রাহ্মণ পুরোহিতদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এ জন্যে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ুয়া বলেন,করোনা কালীন সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের জন্য উপহার পাঠিয়েছেন। আমরা সেগুলো মানুষের কাছে পৌছে দিয়েছি। যাতে করে একজন লোকও খাবার না পেয়েকষ্ট না করে। আপনাদের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে করোনার সময়ে সেখানে এই শুভেচ্ছা উপহার কিছুই নয়। তবু আপনাদের মনে রাখতে হবে সরকার ও আমাদের জেলা প্রশাসন সবসময় আপনাদের সাথেই আছে।আমরা স্বাস্থ্যবিধি অব্যশই মেনে চলবো। ধর্মীয় কাজের পাশাপাশি আমাদের নিজেদের জীবন সুস্থ্য রাখতে হলে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বঙ্গবন্ধু স্বপ্নের সোনার বাংলা একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ তৈরীর পথে আছি আমরা। আমরা সবাই যদি সম্মিলিতভাবে হাতে হাত ধরে কাজ করি তাহলে আমরা আমাদের সুন্দর আগামী তৈরী করতে পারবো।
জেলার কেন্দ্রীয় মন্দির শ্রীশ্রী আনন্দময়ী কালী মন্দির পরিচালনা ট্রাস্টি কমিটির সদস্য আশিষ পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যানের মাঝে উপস্থিত ছিলেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সোমেষ রঞ্জন রায়, সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্র্যাট
এবিএম মশিউজ্জামান, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো: মাহবুব আলম, নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) সঞ্জিব সরকার, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্র্যাট প্রশান্ত বৈদ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধারী বাপ্পী, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মো: বাহারুল ইসলাম মোল্লা, সাংবাদিক উজ্জল চক্রবর্তী, শফিকুল আলম স্বপন,চয়ন বিশ্বাস, এডভোকেট রাকেশ রায় সহ ব্রাহ্মণ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে সভার শুরুতে গীত পাঠের মাধ্যমে করোনা কালে প্রধানমন্ত্রী সহ দেশ ও জাতির কল্যান কামনার বিশেষ প্রার্থনা করা হয়। এসময় অসুস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানবিক জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খানের জন্য দ্রুত সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করাহয়। প্রার্থনা পরিচালনা করেন ব্রাহ্মণ সংগঠনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক পন্ডিত শ্রী প্রবীর চন্দ্র আচার্য।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments