শনিবার, মে ১৮, ২০২৪
হোমজেলাব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকারের বাস ভবনে রহস্য জনক...

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকারের বাস ভবনে রহস্য জনক আগুন!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া অফিস: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক  নিজস্  প্রতিবেদক ;যোদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকারের ফুলবাড়ীয়াস্থ বাস ভবনে রহস্যজনক অগ্নি কান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আজ শনিবার দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট প্রায় এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। খবর পেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মো: রহুল আমীন ও পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আনিসুর রহমান সহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছোটে আসেন।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও এলাকাবাসী জানান,“আজ দুপুরের দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ফুলবাড়ীয়াস্থ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক যোদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকারের বসদ বাড়ীর একটি কক্ষে প্রথমে আগুনের সূত্রপাত হয়। পরে আগুনের লেলিহান শিখা মূহুর্তেই পাশের টিনশেডের ঘরের তিনটিকক্ষে ছড়িয়ে পরে। এতে বসদ ঘরের ৩টি ফ্রিজ,চেয়ার, টেবিল, বিছানা, ফার্নিচার সহ টিনশেটের ঘরের সবকিছু পুরে ভস্মিভূত হয়। খবর পেয়ে এলাকাবাসীর পাশপাশি দ্রুত ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা ঘটনা স্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।
ঘটনা স্থলে উপস্থিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আক্তার হোসেন বলেন, যারা এই আগুন লাগিয়ে প্রশাসন তাদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় আনবে বলে আমরা এলাকাবাসী আশা করছি।
বাড়ীর কেয়ারটেকার মিলন মিয়া জানান, দুপুরে হঠাৎ করে বাড়ীতে ধোঁয়া দেখতে পেয়ে আমি সবাইকে জানাই। পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে বাড়ীর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। বাড়ীর পাশে যে দেয়াল আছে সেটি টপকে যে কেউ এসে আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে। আল মামুন সরকার বর্তমানে এই বাসায় থাকেন না। এই বাসার গ্যাস লাইন ও বৈদ্যুতিক লাইন বন্ধ আছে। তার মানে এখানে কেউ এসে আগুন দিয়েছে।

ঘটনা সর্ম্পকে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকার বলেন,আমার বাড়ীর পিছনের দিক থেকে অগ্নি সংযোগ করে হয়েছে। গত এক বছর ধরে এই বাসায় রান্না অথবা গ্যাসের লাইনের কাজ করা হয় না। আমার এই বাসায় কেউ থাকি না। আমি পরিবার নিয়ে বাগান বাড়ীতে থাকি। এটি একটি পরিকল্পিত ভাবে আগুন দেয়া হয়েছে এই বিষয়ে সন্দেহ নেই। তিনি বলেন,”এটি নি:সন্দেহে দুবৃর্ত্তের আগুন। তবে ঘটনার জন্যে তিনি তার দলের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলামের দিকে অভিযোগের তীর ছোড়ে বলেন, জৈনক নজরুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছেন। ফেইসবুকে লিখালিখি করছে। নজরুল আমার বাড়ীকে যোদ্ধাপরাধীর বাড়ী বলে আখ্যায়িত করছেন। আমার ধারনা সেই এ ঘটনার পেছনে জরিত থাকতে পারে। তিনি তদন্ত করে ঘটনার সাথে জরিতদের গ্রেপ্তারের দাবী জানান।
এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন,” আমি নাশকতায় পছন্দ করিনা। কেউ যদি তার বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে থাকেন আমি ঘটনাকে চরমভাবে ঘৃণা প্রকাশ করছি। ঘটনাকে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যম খুঁজে বের করে অপরাধী কে শাস্তি দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: রহুল আমীন বলেন, এ বিষয়টি নাশকতা নাকি অন্য কোনো কারণে ঘটেছে সেজন্য ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে। তারা যেভাবে আমাদের কাছে তদন্ত রির্পোট দিবেন তার উপর ভিত্তি করে পরর্বতী আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আনিসুর রহমান বলেন,” আমরা অনুসন্ধ্যান করছি। কোথা থেকে আগুন লেগেছে কে বা কারা আগুন দিয়েছে আমরা কারণ খুজে দেখছি। এখন আমরা ফায়ার সার্ভিসের রিপোর্টের অপেক্ষা করছি। বিষয়টি অত্যান্ত গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে। রির্পোট পেলে তদন্ত করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর মোনায়েম বিল্লা জানান, এখানে বেদ্যুতিক লাইন ও গ্যাসের লাইন বন্ধ ছিল। তাই বাইরে থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে। তবে কিভাবে আগুন লেগেছে সেটি আমরা পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করার পরই স্পষ্ট করে বলতে পারবো। প্রাথমিক ভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান অন্তত ১০ লাখ টাকা হবে বলে জানাগেছে।
উল্লেখ্য: এর আগে গত ২৬,২৬ এবং ২৮ শে মার্চ হেফাজতের তাণ্ডব চলাকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক যোদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকারের বাড়িতে হামলা-ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছিল

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments