সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২২
হোমজেলাব্রাহ্মণবাড়িয়াভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবৈধ ওষুধ কোম্পানী সিলগালা ॥ দুই লাখ টাকা...

ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবৈধ ওষুধ কোম্পানী সিলগালা ॥ দুই লাখ টাকা জরিমানা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় “লরেল ভিস্তা” নামে একটি অনুমোদনহীন ওষুধ কোম্পানীকে সিলগালা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল বুধবার বিকেলে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পঙ্কজ বড়–য়া সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের কালিসীমা গ্রামের ওই কোম্পানীতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।
ভ্রাম্যমান আদালত ওই কোম্পানীর মালিক কামরুল হাসান চকদারকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন এবং ওষুধ বানানোর বেশ কিছু সরঞ্জামাদি জব্দ করেন।
ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, জেলার নাসিরনগর উপজেলার কামরুল হাসান চকদার নামে এক ব্যক্তি কালিসীমা গ্রামের একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে “লরেল ভিস্তা” নামে গবাদী পশুর একটি ওষুধ কোম্পানী গড়ে তুলেন। সেখানে তৈরি হতো অনুমোদনহীন ৪৯ ধরণের ওষুধ। ওই ওষুধ কোম্পানীতে নেই কোন কেমিস্ট। ওষুধ কোম্পানির এক সময়কার বিক্রয় প্রতিনিধিই বানাতেন এসব ওষুধ।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পঙ্কজ বড়–য়া ওই কোম্পানীতে অভিযান পরিচালনা করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পঙ্কজ বড়–য়া জানান, লোক চক্ষুর আড়ালে ওই বাড়িতে গবাদি পশুর ওষুধ বানাতেন কামরুল হাসান চকদার। বাজার থেকে পাওয়া চাহিদা অনুযায়ি ৪৯ ধরণের ওষুধ বানানো হতো এতে। ‘লরেল ভিস্তা’ নামে কোম্পানির নাম দিয়ে ওষুধ বাজারজাত করা হতো। অথচ এর কোনো অনুমোদন নেই।
তিনি আরো জানান, অভিযানের সময় ওই কোম্পানিতে কোনো কেমিস্ট পাওয়া যায় নি, মান নিয়ন্ত্রণের কোনো ব্যবস্থা নেই, ওষুধের মোড়কের গায়ে মিথ্যা তথ্য দেয়া হয়েছে, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধের প্যাকেট পরিবর্তন করে নতুন প্যাকেটে ওষুধ ভর্তি করে বিক্রি করা হতো। কামরুল হাসান চকদার আগে ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments